In the news

অলিভার স্যাকস

  • অলিভার স্যাকস। নিউরোলজিস্ট। প্রয়াত হলেন ৮২ বছর বয়সে। বিজ্ঞানী হিসেবে যত না, তার থেকেও বেশি আমরা তাঁকে চিনেছি মানুষের মস্তিষ্কের কিম্ভূত জটিলতার ভাষ্যকার হিসেবে। “The Man Who Mistook His Wife for a Hat” (১৯৮৫), “Seeing Voices” (১৯৮৯), “An Anthropologist on Mars” (১৯৯৫), “The Mind’s Eye” (২০১০)— একটির পর একটি বইতে অলিভার স্যাকস তুলে ধরেছেন আমাদের মগজের জটিল কলকব্জা, প্রতিটা ন্যূনতম উপাদানের গুরুত্ব। আবার উল্টোদিকে দেখিয়েছেন, বৈকল্য পাশ কাটানোর জন্য মস্তিষ্ক কীভাবে নিজেকে ভেঙে-গড়ে অবিচ্ছিন্ন সক্রিয় রাখার চেষ্টা করে। “The Island of the Colorblinds” (১৯৯৭) বইতে লেখেন এমন এক দ্বীপে ভ্রমণের অভিজ্ঞতা, যার অধিকাংশ মানুষের রঙের অনুভূতি নেই। পৃথিবীটা তাদের কাছে সাদাকালো। ওরই কাছাকাছি আর-এক অঞ্চলে তিনি পান রহস্যময় স্নায়ুবৈকল্যে আক্রান্ত কয়েকজন মানুষকে, যার কারণ খুঁজতে তিনি পাঠককে নিয়ে যান উদ্ভিদজগতে। তাঁর দু’টি আত্মজৈবনিক রচনা “Uncle Tungsten” (২০০১) এবং “On the Move” (২০১৫)। বিরল এক ঘুমরোগে আক্রান্ত মানুষদের নিয়ে লেখা বই “Awakenings” চলচ্চিত্রে রূপায়িত হয়েছিল ১৯৯১ সালে।

    তাঁর চোখে এক ধরনের ক্যানসার ধরা পড়ে নয় বছর আগে। সে যাত্রায় শল্যচিকিত্‌সার মাধ্যমে তিনি রেহাই পান, যদিও একটি চোখের দৃষ্টি বিসর্জন দিতে হয়। এ বছর ফেব্রুয়ারি মাসে ধরা পড়ে রোগটি ছড়িয়েছে লিভারে। নিজেই সে কথাটি জানিয়ে একটি অপ-এড রচনা লিখেছিলেন নিউ ইয়র্ক টাইমস-এ। মৃত্যু নিয়ে এমন মর্মস্পর্শী অথচ জীবনসম্পৃক্ত লেখা বিরল। রচনাটির শেষে তিনি নিজেকে পেশ করেন এইভাবে: “Above all, I have been a sentient being, a thinking animal, on this beautiful planet, and that in itself has been an enormous privilege and adventure.”